রিসালাত ও বিস্ময়কর আল-কুরআন

  • Jamia Admin
  • Friday 28, 2017
  • প্রবন্ধ

আর আমি আমার বান্দার প্রতি যা অবতীর্ণ করেছি, তাতাএ যদি তোমাদের সন্দেহ থাকে,তাহলে তার অনুরূপ একটি সুরা নিয়ে এসো এবং মহান আল্লাহ ছাড়া তোমাদের সকল সাহায্যকারীকে ডেকে আনো যদি তোমরা সত্যবাদি হও। তারপর তোমরা যদি তা করতে না পারো এবং তোমরা তা কখনোই করতে পারবেনা। তাহলে তোমরা সে আগুনকে ভয় করো, যার ইন্ধন হবে মানুষ ও পাথর-যা প্রস্তুত করে রাখা হয়েছে কাফির দের জন্যে।” (সুরা আল-বাক্বারা ২; ২৩-২৪)

দারসের বিষয়বস্তুঃ গত দারসে মহান আল্লাহ্‌র উলুহিয়্যাত এর বলিষ্ঠ প্রমান পেশ করার পর চলতি দারসে উল্লেখিত আয়াতদ্বয়ে মুহাম্মাদ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম)-এর প্রতি প্রেরিত রিসালাত এর অকাট্য প্রমান ও দাবী সন্নিবেশিত হয়েছে। সাথে সাথে মহানবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম) যে আল্লাহ্‌র বান্দাহ-রুবুবিয়্যাত ও উলুহিয়্যাতে তার কোন দখল নেই সে কথা অতি চমৎকার ভাবে বিধৃত হয়েছে। উপরস্তু মহাগ্রন্থ আলকুরআন মহান আল্লাহ্‌র কালাম ও শ্রেষ্ঠ মুজিযাহ, তা দৃঢ় ভাবে ব্যক্ত হয়েছে।

আল কুরআন অকাট্য মুজিযাহঃ ‘উমার, ইবনু মাস’ঊদ ও ইবনু আব্বাস (রাযিয়াল্লাহু আনহু) প্রমুখাত বাচনিক উক্তি উল্লেখপূর্বক ইমাম ইবনু জারীর (রহিমাহুল্লাহ) বলেন ,শিক্ষিত ও অশিক্ষিত সকলের প্রতি এই মর্মে চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে যে, আল-কুরআন মহান আল্লাহ্‌র ক্বালাম হওয়ার ব্যপারে কারো সন্দেহ হলে সে যেন এর অনুরূপ তৈরি করে দেখায়। মহান আল্লাহ একাধিক আয়াতে উপরোক্ত চ্যালেঞ্জ ঘোষনা করেছেন। যেমন মহান আল্লাহ ইরশাদ করেন- (.............................................................................................।) “তারা কি বলে, তুমি কুরআন তৈরি করেছ? বলঃ তবে তোমরাও অনুরূপ দশটি সুরা নিয়ে এসো এবং আল্লাহ ছাড়া যাকে পারো ডেকে নাও! যদি তোমরা সত্যবাদী হয়ে থাক”।(সুরা হুদ ১১ঃ১৩)

মহান আল্লাহ আরো বলেন (..........................................) “বলুন ! যদি মানব ও জিন এ কোরআনের অনুরূপ রচনা করে আনয়নের জন্যে জড়ো হয়, এবং তারা পরস্পরের সাহায্যকারী হয়, তবুও তারা কখনও এর অনুরূপ রচনা করে আনতে পারবেনা।” (সুরা ইসরা ১৭;১৮)

মুজাহিদ ও ক্বাতাদাহ (রাযিয়াল্লাহু আনহু) বলেন, এভাবে মহান আল্লাহ তার নবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম)- এর মাক্কী জিবনে সন্দেহ বাদী দের প্রতি চ্যালেঞ্জ করেন। অতঃপর রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসল্লাম)- এর হিজরতের পর (--------------------------) আয়াতখানা নাযিল করে চূড়ান্ত চ্যালেঞ্জ অব্যাহত রাখেন। এভাবে সন্দেহবাদীরা মহান আল্লাহ্‌র চ্যালেঞ্জ গ্রহন করতে অপারগ হয় এবং আলকুরআন আল্লাহ্‌র ক্বালাম ও শ্রেষ্ঠ মুজিযাহ একথা সন্দেহাতীত ভাবে প্রমাণিত হয়. (আল মিসবাহুল মুনীর ফী তাফসীর ইবনু কাসীর-দারুসসালাম ,রিয়াদ ৪৩)

 

চলবে.........।